মঠবাড়িয়ায় পরিত্যক্ত ঘরে আগুন দিয়ে মিথ্যা মামলা দেয়ার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

 

স্টাফ রিপোর্টার ঃ
পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় একটি পরিত্যক্ত ঘরে আগুন দিয়ে মিথ্যা মামলা দেয়ার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার ধানিসাফা ইউনিয়নের বেপারী বাড়িতে। আজ ২২ মে শনিবার মঠবাড়িয়া রিপোর্টার্স ইউনিটির অফিস কার্যালয় সংবাদ সম্মেলন করেন ভুক্তভোগী পরিবার।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে সাথী আক্তার বলেন, গত ১৬/০৫/২০২১ইং তারিখে বেপারী বাড়ি সাহেব আলীর ছেলে ইয়াসিন ও ফখরদ্দিনের মেয়ে মৌসুমির মধ্যে বাল্য বিবাহের আয়োজন চলছিল। সে খানে কে বা কাহারা ৯৯৯ ফোন করলে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট গিয়ে বিবাহ বন্ধ করে অর্থদন্ড করেন। বল্য বিবাহের আয়োজনকারী উভায়ের পরিবার ভবিষ্যতে এমন অপরাধের সাথে জড়িত হবেনা বলে মুছলেখা দেন। পরবর্তীতে ছেলে মেয়ের পরিবারের লোকজন ক্ষিপ্ত হয়ে সন্দেহ করে ওই রাতেই আমার শ্বশুর রত্তন বেপারীর বাড়িতে গিয়ে হামলা চালায়। পরদিন সকালে আমার শ্বশুর রত্তন বেপরী হামলার বিষয়ে মঠবাড়িয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করিলে পুলিশ ঘটনা স্থানে তদন্ত করতে যাওয়ায় তাহারা পুনঃরায় ক্ষিপ্ত হয়ে আমি সহ আমার দেবর মিজানুর,আল আমিন, ননদ জেসমিনকে কুপিয়ে পিটিয়ে গুরুতর রক্তাক্ত করে ফেলে। উক্ত ঘটনায় আমরা মঠবাড়িয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় থাকি এবং এ ব্যাপারে মঠবাড়িয়া থানায় আমি বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করি। যাহা আপনারা বিভিন্ন সংবাদ প্রকাশের মাধ্যমে অবগত আছেন। গত ১৭ মে আমরা বিভিন্ন মারফত জানতে পারি আমাদের ওপর এই বর্বরোচিত হামলা ধামাচাপা দেয়ার জন্য ওই রাতেই তাহারা নিজেরা জামালের নেতৃত্বে পরিকল্পতি ভাবে হানিফের একটি পত্যিক্ত সাপরা ঘরে আগুন লাগিয়ে আমাদেরকে ফাসানোর জন্য একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করে। এ ব্যাপারে ভুক্তভোগির পরিবার সত্য ঘটনা উদঘটন করে প্রশাসনে কাছে ন্যায় বিচার পাওয়ার দাবী জানান।

উক্ত বিষয় মঠবাড়িয়া থানা অফিসার ইনচার্জ মুহা: নুরুল ইসলাম বাদল উভয় পক্ষের মামলার সত্যতা স্বীকার করে জানান, তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

0Shares

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।